আদিবাসী নারীকে শ্বাসরোধে হত্যা, আটক ৫

সারাবাংলা ডেস্ক :
Published:  2017-07-01 12:58:40

আদিবাসী নারীকে শ্বাসরোধে হত্যা, আটক ৫

 

দিনাজপুরে বীরগঞ্জে ভূষণি ঋষি (৫০) নামে আদিবাসী এক নারীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

ভূষণি ঋষি বীরগঞ্জ উপজেলার ভোগনগর ইউনিয়নের ভাবকি মুশোহর পাড়া গ্রামের কেশরি ঋষির প্রথম স্ত্রী। স্বামী কেশরি ঋষি দ্বিতীয় স্ত্রী সকিনা ঋষিকে নিয়ে অন্যত্র বসবাস করেন। শনিবার বিকেল ৪টায় লাশ উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

বীরগঞ্জ থানার এসআই মো. সাইদুর রহমান জানান, উপজেলার ভোগনগর ইউনিয়নের ভাবকি মুশহর পাড়া গ্রামের কেশরি ঋষির স্ত্রী ভূষণি ঋষির সাথে শুক্রবার বিকেলে প্রতিবেশী বাদল ঋষির স্ত্রী রশ্নি ঋষির (৩৫) ঝগড়া হয়। শনিবার সকালে এলাকাবাসী বাড়ির পাশে ভুট্টা খেতে ভূষণি ঋষির লাশ পড়ে থাকতে দেখে পরিবারের লোকজনকে খবর দেয়। পরে পুলিশ সংবাদ পেয়ে লাশ উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। নিহতের ডান কানে আঘাতের দাগ রয়েছে এবং মুখের কিছু অংশ মাটিতে পুতে রাখা ছিলো। মাটিতে মুখ চেপে রেখে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ।

বীরগঞ্জ থানার এসআই মো. আনোয়ারুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামী কেশরী ঋষি (৬০) এবং তার দ্বিতীয় স্ত্রী সকিনা ঋষি, (৩৫), বাদল ঋষির স্ত্রী রশ্নি ঋষি (৩৫), তার জামাই বোচাগঞ্জ উপজেলার কলেজ পাড়া গ্রামের মৃত সলিন্দর ঋষির ছেলে দুলাল ঋষি (২৬) এবং ভাবকী গ্রামের মৃত বিস্তার উদ্দিনের ছেলে মো. সাইফুল ইসলামকে (৫০) আটক করা হয়েছে।

বীরগঞ্জ থানার ওসি আবু আককাছ আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার মুল রহস্য উদঘাটনে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। নিহতের ছেলে বাইরে রয়েছে। সে আসার পর থানায় মামলা দায়ের করা হবে বলেও জানান ওসি আবু আককাস আহমেদ।

এ বিভাগের আরও খবর

লাইভ ক্রিকেট স্কোর