বাংলাদেশে সফল হলেই লাভের মুখ দেখবে ‘বস টু’

বিনোদন ডেস্ক :
Published:  2017-07-01 10:54:31

বাংলাদেশে সফল হলেই লাভের মুখ দেখবে ‘বস টু’

 

বাংলাদেশে ‘বস টু’র মুক্তি নিয়ে কত কিছুই না হলো। প্রযোজনা সংস্থা জাজ মাল্টিমিডিয়ার যুক্তি ছিল— বাংলাদেশের হল বাঁচাতে এ সিনেমার মুক্তি দরকার। কিন্তু শাকিব খানের ‘নবাব’-এর কাছে পাত্তা পাচ্ছে না সিনেমাটি। এমনকি কলকাতায়ও জমেনি জিৎ-শুভশ্রী-নুসরাত ফারিয়া রসায়ন।

স্থানীয় জি নিউজ জানায়, ঈদের বাজারে কোনো সিনেমাই কলকাতায় মাত করতে পারেনি। সেই নেতিবাচক হাওয়া ‘বস টু’র গায়েও লেগেছে।

সংবাদমাধ্যমটি লেখে, নিজের নামে এই প্রথম প্রযোজনা করলেও জিতের প্রযোজনার অভিজ্ঞতা আছে আগেও। বন্ধু বাবা যাদবের পরিচালনায় ‘বস টু’ও এখনো পর্যন্ত সেভাবে দাগ কাটল না বক্স অফিসে। অথচ, চার বছর আগে ‘বস’-এর সাফল্য এখনো সকলের মুখে মুখে ফেরে। নতুন গল্প, ঝকঝকে শুটিং, জিত্‍-শুভশ্রীর কেমিস্ট্রি, নুসরত ফারিয়া বিতর্ক, জিৎ গাঙ্গুলির সঙ্গীত পরিচালনা কোনোটারই প্রভাব পড়ল না।

বাংলা ছবির দর্শক কী তাহলে এই ধরনের লার্জার দ্যান লাইফ ছবি পছন্দ করছেন না? না হলে কেবল সৌমিত্র-যিশুর কম্বিনেশনে ‘পোস্ত’ যদি প্রথম চারদিনে এক কোটি ও দশদিনের মাথায় আড়াই কোটি টাকা রোজগার করতে পারে, তাহলে জিৎ-শুভশ্রী বা দেবের মতো সুপারস্টারদের ছবি তার ধারেপাশেও পৌছতে পারছে না কেন?

এদিকে শিল্পী সংখ্যা, লোকেশন ও অন্যান্য ক্ষেত্রে ভারসাম্য না রাখায় বাংলাদেশে বেশ বিতর্কের মুখোমুখি হয় ‘বস টু’। এক টিভি টক শো’তে জাজের কর্ণধার আব্দুল আজিজ জানান, বাংলাদেশে সিনেমাটির শুটিং হয়েছে ১০ দিন। বাংলাদেশে পক্ষের বিনিয়োগ এতটুকুই। এরপর বিতর্ক আরো ডালপালা মেলে। সব মিলিয়ে বাংলাদেশে সফল হলেই লাভের মুখ দেখবে ‘বস টু’।

লাইভ ক্রিকেট স্কোর