সেই নাদিম-আজমের সঙ্গে দেখা করলেন ফখর জামান

খেলাধুলা ডেস্ক:
Published:  2017-06-30 11:22:55

সেই নাদিম-আজমের সঙ্গে দেখা করলেন ফখর জামান

 

প্রতিভা ছিল। স্কুল ক্রিকেটে সুনামও কুড়িয়েছিলেন বেশ। কিন্তু ক্রিকেটে ক্যারিয়ার গড়ার কথা ভাবেননি কখনোই। তাই তো পড়া-লেখার পাট চুকিয়ে যোগ দিয়েছিলেন পাকিস্তানের নৌবাহিনীতে (নেভি)। কিন্তু ভাগ্যের চাকা ঘুরে সেই ফখর জামান এখন পাকিস্তানের নতুন ক্রিকেট তাঁরা। পাকিস্তানের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা জয়ের অন্যতম নায়ক। গত ১৮ জুন, ওভালের ফাইনালে তার ১০৬ বলে ১১৪ রানের অসাধারণ ইনিংসে চড়েই চিরশত্রু ভারতকে হারিয়ে প্রথম বারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপার স্বাদ পায় পাকিস্তান। সেই থেকেই ফখর জামান ভাসছেন প্রশংসা-অভিনন্দনের জোয়ারে।

যেখানেই যাচ্ছেন, সিক্ত হচ্ছেন সমর্থকদের অকৃত্রিম ভালোবাসায়। তবে অভিনন্দন পেতে নয়, এবার তিনি নিজেই ছুটে গিয়েছিলেন বিশেষ দুজনকে অভিনন্দন-কৃতজ্ঞতা জানাতে। ক্যারিয়ারের চাকাটা ঘুরিয়ে দিয়েছেন যারা, যাদের অশেষ সহযোগিতা আর পরামর্শে আজ তিনি পাকিস্তানের ক্রিকেট আকাশের নতুন তাঁরা, তাদেরকে স্পেশাল একটা ধন্যবাদ না জানালে চলে! ফখর জামান তাই ছুটে গিয়েছিলেন নাদিম ওমর ও আজম খানকে কৃতজ্ঞতা জানাতে। এই দুজনর সুবাদেই যে আজ তিনি দেশের ক্রিকেট নায়ক।

সত্যিই তাই। নৌবাহিনীর চাকরি ছেড়ে তার ক্রিকেটার বনে যাওয়ার পেছনে এই দুজনের ভূমিকাই সবচেয়ে বেশি। পাকিস্তান ক্রিকেট ক্লাবের সেক্রেটারি আজম খান পাকিস্তান নেভি ক্রিকেট দলেরও কোচ। নেভি দলের হয়ে ফখর জামানের ব্যাটিং দেখে আজম খান এতোটাই মুগ্ধ হন যে, তাকে পরামর্শ দেন ক্রিকেটে ক্যারিয়ার গড়ার। কোচের সেই পরামর্শ মেনে ফখর জামানও সিদ্ধান্ত নেন ক্রিকেটার হবেন। সম্মতি পেয়েই আজম খান শিষ্যকে নিয়ে যান পাকিস্তান ক্রিকেট ক্লাবের সভাপতি নাদিম ওমরের কাছে। যিনি পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) দল কুয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সেরও মালিক।

তো নাদিমও প্রথম দেখার পরই ফখর জামানের জন্য খুলে দেন ক্লাবের দরজা। ফলে খাইবার পাখতুনখাওয়ার মার্দানে জন্ম হলেও ২০১৩ সালে ফখর জামানের প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক হয় করাচির পাকিস্তান ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে। এরপর কেবলই এগিয়ে যাওয়া। নাদিম ওমর ও আজম খানের সহযোগিতায় পাকিস্তান ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে বিভিন্ন টুর্নামেন্টে পারফরম্যান্সের দ্রুতি ছড়িয়ে নজর কাড়েন সবার। ফলও পেতে যান দ্রুতই। এ বছরই কুয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে অভিষেক হয় পিএসএলে। সেখানে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পুরস্কার হিসেবে ডাক পেয়ে যান জাতীয় দলেও। এপ্রিলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজে টি-টুয়েন্টি অভিষেক। আর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ওয়ানডে অভিষেকের পর তো হয়ে গেছেন ইতিহাসেরই অংশ।

২৭ বছর বয়সী ফখর জামান তাই কৃতজ্ঞচিত্তে অভিনন্দন জানালেন নাদিম-আজমকে। এই দুই ক্রিকেটানুরাগিও নিজেদের হাতে গড়া ক্রিকেট বীরকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। মুহূর্তটিকে স্মৃতিবন্দী করতে তুলেছেন ছবিও। যে ছবি সঙ্গে সঙ্গেই পোস্ট করেছেন ফেসবুকে। নাদিম ওমর, আজম খান ও ফখর জামানের সঙ্গে ক্যামেরাবন্দী হয়েছেন পাকিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটার তরুণ হাসান খানও। এ বছরের পিএসএলে যিনি ফখর জামানের সঙ্গেই খেলেছেন কুয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সে।

লাইভ ক্রিকেট স্কোর