টিকবে না পৃথিবী, মঙ্গলে গড়তে হবে বসতি: হকিং

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক:
Published:  2017-06-22 14:15:31

টিকবে না পৃথিবী, মঙ্গলে গড়তে হবে বসতি: হকিং

 

পৃথিবীর সময় দ্রুত ফুরিয়ে আসছে, ধ্বংস অনিবার্য! সেক্ষেত্রে চাঁদ আর মঙ্গলই হতে পারে মানবসভ্যতার পরবর্তী গন্তব্য! এমনই মন্তব্য করেছেন পদার্থবিদ ও কসমোলজিস্ট স্টিফেন হকিং। নরওয়ের ট্রন্ডহিমে স্টারমাস সায়েন্স ফেস্টিভ্যালে সম্প্রতি প্রবাদপ্রতিম এই জ্যোতির্বিজ্ঞানী বলেন, সভ্যতাকে টিকিয়ে রাখতে হলে এখন থেকেই ব্যবস্থা নিতে হবে। তাতে অন্তত আরও ১০ লক্ষ বছর মানুষের টিকে থাকা সম্ভব।

হকিংয়ের হিসেবে আগামী ৩০ বছরের মধ্যে চাঁদে আর ৫০ বছরের মধ্যে প্রতিবেশি মঙ্গলে আমাদের বসতি গড়ে তুলতেই হবে। রক্ষা করতে হবে গাছপালা ও অন্যান্য প্রাণী। আর তা হলেই হয়তো টিকে যাবে মানব সভ্যতা।

নরওয়ের ট্রন্ডহিমে হকিং আরও বলেন, “আমি নিশ্চিত, হাতে আর খুব বেশি সময় নেই আমাদের। এই পৃথিবী ছেড়ে অন্য কোথাও চলে যেতেই হবে। আমাদের টিকে থাকার জন্য পৃথিবীটা দ্রুতই ছোট হয়ে আসছে। বাঁচার জন্য যে সব প্রাকৃতিক সম্পদ প্রয়োজন, তা খুব তাড়াতাড়ি ফুরিয়ে আসছে। এবং তা উদ্বেগজনক হারে।”

তার এমন বক্তব্যের কারণ হিসেবে মঙ্গলবার হকিং জানান, “আমাদের এই গ্রহের খুব কাছে থাকা (near earth objects) গ্রহাণু একের পর এক পৃথিবীর ওপর আছড়ে পড়তে চলেছে। এই পৃথিবীটাকে ধ্বংস হয়ে যাওয়ার রাস্তাগুলো আমরাই এত দিন ধরে তৈরি করেছি। আমাদের কারণেই জলবায়ু মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়েছে। পৃথিবীর তাপমাত্রা বাড়ছে, বরফ গলছে দ্রুত হারে। বসতি গড়তে গিয়ে বনাঞ্চল কেটে সাফ করে ফেলেছি। ফলে ভেঙে পড়ছে বাস্তুতন্ত্র বা ইকোসিস্টেম।”

হকিং বলেন, “এরই মধ্যে পৃথিবী থেকে বহু প্রজাতির প্রাণী ও উদ্ভিদ বিলুপ্ত হয়ে গেছে। এটা কল্প বিজ্ঞান নয়, বৈজ্ঞানিক সত্য। কেননা পদার্থবিজ্ঞানের নিয়ম ও সূত্র সেটাই বলছে।”

হকিংয়ের কথায়, ‘‘এর আগে যখনই সভ্যতা অস্তিত্বের সংকটে পড়েছে, বেঁচে থাকার জন্য মানুষ নতুন নতুন জায়গা আবিষ্কার করে নিয়েছে। এভাবেই ১৪৯২ সালে কলম্বাস আমেরিকা আবিষ্কার করেছিলেন। কিন্তু পৃথিবীতে আর তেমন কোনও জায়গা নেই, যেখানে সভ্যতাকে টিকিয়ে রাখা সম্ভব। তাই পৃথিবী নয়, যেতে হবে অন্য গ্রহে। সেখানেই আমাদের নতুন করে ইকো সিস্টেম গড়ে তুলতে হবে। সব প্রাণী, উদ্ভিদ, ব্যাকটেরিয়া, অ্যামিবা, শৈবাল, ছত্রাক, পতঙ্গদের ব্যবহার করে।”

চাঁদ আর মঙ্গল ছাড়াও এই ব্রহ্মাণ্ডে মানবসভ্যতার আরও একটি ঠিকানা বাতলে দিয়েছেন হকিং। হতাশা আর আশঙ্কা কথা শুনিয়ে দিয়েছেন আশার বাণী। জানিয়েছেন, “আমাদের সৌরজগতের সীমানা পেরোলেই মিলতে পারে মনের মত বাসযোগ্য গ্রহ। সৌরজগতের সবচেয়ে কাছে ‘আলফা সেনটাওরি’ নক্ষত্রমণ্ডলে রয়েছে এমনই গ্রহ। নাম আলফা সেনটাওরি বি.. মাত্র ৪ আলোকবর্ষ দূরে। যেখানে মানুষের বাস গড়ে তোলাটা কঠিন হবে না। তাই আমাদের খুব তাড়াতাড়ি সেখানে পৌঁছে যাওয়ার চেষ্টা চালাতে হবে।

লাইভ ক্রিকেট স্কোর