নবাবগঞ্জে প্যারাগন হাসপাতালে ভুল চিকিৎসা অভিযোগ করলেন রোগী

সারাবাংলা নিজস্ব প্রতিনিধি :
Published:  2017-05-14 00:52:45

নবাবগঞ্জে প্যারাগন হাসপাতালে ভুল চিকিৎসা অভিযোগ করলেন রোগী

অানুমানিক ২০দিন আগে ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার প্যারাগন হাসপাতালে পেট ব্যথার সমস্যা নিয়ে যান লিজা নামে এক গৃহিণী। প্যারাগন হাসপাতালের কর্মরত ডাক্তার তাকে দেখে জুরুরী বিভাগে ভর্তি করাতে বলেন। ভর্তি পরে প্রাথমিক চিকিৎসা ও ব্যথা নাশক ঔষুধ প্রয়োগ করেন।

পরে আল্ট্রা করে কর্মরত ডাক্তার রোগীর অবিভাবককে বলেন আপনাদের রোগীর এপেন্টিস ফেঁটে গেছে।আপনারা রোগীকে ইমার্জেন্সী ঢাকা হাসপাতালে নিয়ে যান। এখানে চিকিৎসা করা সম্ভব নয়। পরে এ্যাম্বুলেন্সে করে লিজাকে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা হাসপাতালে। সেখানকার কর্মরত ডাক্তার রোগীকে প্রাথমিক চিকিৎসা করে বলেন গ্যাসফম করেছে ও প্রস্রাবে ইনফেকশন আছে ভয়ের কিছু নেই রোগী এখন সুস্থ সকালে নিয়ে যেতে পারবেন।

লিজা বাহ্রা ইউনিয়নের বলমন্তচর গ্রামের নাসিরের স্ত্রী। বেসরকারি ক্লিনিক গুলোতে দক্ষ ডাক্তার না থাকার কারণে রোগীরা হয়রানি শিকার হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন রোগীর স্বজনরা। প্যারাগন হাসপাতালের ম্যানেজিং ডিরেক্টর  মোঃশাখাওয়াত হোসাইনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন-পেটে ব্যথা থাকলে ডাক্তারা এপেন্টিস সন্দেহ করে এপেন্টিস ক্ষেত্রে ডাক্তারা ঢাকা রেফার্ড করে বলেই ফোন কেঁটে দেন তিনি।

ম্যানেজিং ডিরেক্টরের ভিজিটিং কার্ডের পিছনে দেখা গেল সেবা সমূহঃ সেখানে লেখা রয়েছে ইত্যাদি চিকিৎসা প্রদান সহ সকল প্রকার অপারেশন ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়।যা বাস্তবে সাথে রাত/দিন পার্থক্য।।

লাইভ ক্রিকেট স্কোর