হায়দ্রাবাদে নাও খেলা হতে পারে মোস্তাফিজ-ওয়ার্নারদের

ক্রিকেট বিশ্ব ডেস্ক:
Published:  2017-03-21 11:46:32

হায়দ্রাবাদে নাও খেলা হতে পারে মোস্তাফিজ-ওয়ার্নারদের

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) দশম আসর বসতে যাচ্ছে আগামী মাসে। এপ্রিলের ৫ তারিখ মোস্তাফিজুর রহমানদের সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের ম্যাচ দিয়েই বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় টি-টুয়েন্টি আসরের এবারের যাত্রা শুরু। কিন্তু ডেভিড ওয়ার্নারের দলের ঘরের মাঠে খেলা নিয়েই অনিশ্চয়তা শুরু হয়েছে। পরিস্থিতি এমনই যে মোস্তাফিজ-ওয়ার্নারদের হোম ম্যাচগুলো হায়দ্রাবাদে নাও খেলা হতে পারে। কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ ছিলেন গত আসরের সেনসেশন। সেরা উদীয়মান খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতেছিলেন।

বাংলাদেশের সাথে ভারতের একমাত্র টেস্টটি ফেব্রুয়ারিতে আয়োজন করেছিল হায়দ্রাবাদ ক্রিকেট সংস্থা। তবে তার আগে তারা ভারতীয় বোর্ডকে জানিয়েছিল ওই ম্যাচ চালানোর মতো তহবিল নেই তাদের। তারা পারবে না। ম্যাচ অন্য কোথাও হোক। তা শেষ পর্যন্ত খেলাটা ওখানে হলেও বাংলাদেশের ওই টেস্টের কারণে এখন দেনার দায়ে ডুবে আছে হায়দ্রাবাদ সংস্থা। ৪৪ লাখ রুপি দেনা তাদের। সংস্থাটির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ধর্মঘট পালন করছেন। 

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের সংবাদ, এর কারণে মোস্তাফিজ-ওয়ার্নারদের এবারের আইপিএলে সব ম্যাচই হায়দ্রাবাদের বাইরে খেলতে হতে পারে। হায়দ্রাবাদ সংস্থার ১২০জন কর্মচারী তাদের দুই মাসের বকেয়া বেতনের দাবিতে মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকে ধর্মঘটে গেছেন। ভারতীয় বোর্ডের (বিসিসিআই) কাছে হায়দ্রাবাদ সংস্থা টাকার জন্য বারবার হাত বাড়িয়েও কিছু না পেয়ে ব্যর্থতা আর হতাশায়। বিসিসিআইকে চিঠি লিখেও কোনো জবাব পাচ্ছে না তারা। 

হায়দ্রাবাদ গেলবারের চ্যাম্পিয়ন। এবারের আসরের উদ্বোধনী ম্যাচটা তাদের রাজিব গান্ধী ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নির্ধারিত। এছাড়াও এবারের আসরের আরো আটটি ম্যাচ তাদের আয়োজন করার কথা। এর মধ্যে আছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি। মানে ২১ মে অনুষ্ঠেয় এবারের আইপিএলের ফাইনাল। কিন্তু ঝামেলা।

এই প্রথম অবশ্য হায়দ্রাবাদ এমন পরিস্থিতিতে না। হায়দ্রাবাদ থেকে আইপিএলের নির্ধারিত ম্যাচ অন্য কোথাও সরিয়ে নেওয়ার ঘটনা আগেও ঘটেছে। সাত বছর আগে ২০১০ সালে তেলাঙ্গানা মুভমেন্টের কারণে ওখানে নির্ধারিত ম্যাচগুলো মুম্বাই ও নাগপুরে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। এই সপ্তাহে এর মধ্যে এবারের আইপিএলের দুটি ম্যাচের শিডিউল বদলেছে। 

লাইভ ক্রিকেট স্কোর