সাবমেরিনের পর চীন ও রাশিয়া থেকে যুদ্ধ বিমান কিনছে বাংলাদেশ

সারাবাংলা নিজস্ব প্রতিনিধি :
Published:  2016-11-24 09:50:14

সাবমেরিনের পর চীন ও রাশিয়া থেকে যুদ্ধ বিমান কিনছে বাংলাদেশ

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে ঢেলে সাজাতে উদ্যোগ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখা হাসিনা। বুধবারই প্রধানমন্ত্রী সেনাবাহিনীকে দেশের গণতন্ত্ররক্ষার জন্যে সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন।পাশাপাশি বিশ্বের অন্যতম শক্তিতে বাংলাদেশকে পরিণত করতে চীন থেকে দুটি সাবমেরিন কিনেছে ঢাকা।

কিন্তু এখানেই থেমে থাকতে নারাজ পদ্মাপার। আর সেই লক্ষ্যেই এবার রাশিয়া ও চীনের কাছ থেকে আধুনিক যুদ্ধ বিমান ও রাডারসহ বিভিন্ন সমরাস্ত্র কিনবে সরকার।

দেশের বিমান বাহিনীর আধুনিকায়নে জন্যে এই উদ্যোগ বলে জানা গিয়েছে। এক রিপোর্টে জানা গিয়েছে, বাংলাদেশ গত বছরের ডিসেম্বরে স্বল্প পাল্লার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা স্থাপন করেছে।

এছাড়া এক স্কোয়াড্রন (১৬টি) এফ-৭ বিজিআই যুদ্ধ বিমান, তিনটি এমআই-১৭১ হেলিকপ্টার এবং দুটি এডি রাডার কেনার চুক্তি করেছে। এফ-৭ বিজিআই যুদ্ধবিমানগুলি কেনা হচ্ছে চীন থেকে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, রাশিয়ার কাছ থেকে ঋণ চুক্তির আওতায় এক স্কোয়াড্রন প্রশিক্ষণ বিমান (এমআরসিএ জেট ট্রেনার) এবং উচ্চ ক্ষমতার রাডার সংগ্রহ করা হবে।”

অন্যদিকে এই রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে যে এই অর্থবছরে বিমানবাহিনীর তিন হাজার ১২২ জন সদস্যকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এদের মধ্যে ১২০ জন বিদেশে প্রশিক্ষণ পাবে।

মধ্য মেয়াদী বাজেট রূপরেখায় বিমান বাহিনীর ১৬টি যুদ্ধ বিমান ও ১৮টি প্রশিক্ষণ বিমান বদলানো হবে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। আর এজন্যে বিমানবাহিনীর জন্য এক হাজার ৭৬৬ কোটি টাকার খরচ ধরা হয়েছে।২০১৫-১৬ অর্থবছরে যা বেড়ে ২ হাজার ৫৪৯ ডলারে দাড়াবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

সেনার তরফে এক আধিকারিক জানিয়েছেন, “স্বল্প পাল্লার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা স্থাপনের পর আমরা বঙ্গবন্ধু অ্যারোনটিকাল টেকলোজি সেন্টার গড়ার ভিত তৈরি করেছি যেখানে আমরা আমাদের বিমান নিয়ে গবেষণা ও মেরামতের কাজ করতে পারব।”

“আমরা রাশিয়া ও চিনের সঙ্গে চুক্তি করেছি। এই বছরের মধ্যেই তারা সরবরাহ করা শুরু করবে। আশা করছি চীনের কাছ থেকে এই বছরের মধ্যেই কয়েকটি এফ-৭ বিজিআই যুদ্ধবিমান পাব।”

লাইভ ক্রিকেট স্কোর